বাংলাদেশে আসছে অ্যামাজন

298

শতভাগ সরাসরি বিনিয়োগ নিয়ে বাংলাদেশে আসছে বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় ইলেক্ট্রনিক বাণিজ্য কোম্পানি অ্যামাজন।২০২০ সালের শুরুতেই বাংলাদেশে কার্যক্রম পরিচালনা শুরু করবে গ্রহের সর্ববৃহৎ এই ই-কমার্স কোম্পানিটি।

বাংলাদেশে অ্যামাজনের যাত্রা শুরুর ব্যাপারে আলোচনা করতে চলতি বছরের শুরুতেই মার্কিন কোম্পানিটির শীর্ষ পর্যায়ের কর্মকর্তারা ঢাকা ঘুরে গেছেন। তখন ডিজিটাল বাংলাদেশ নিয়ে কাজ করে- সরকারের এমন একটি গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্পের প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠকে বাংলাদেশে কার্যক্রম শুরু করতে চান- এমন সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন তারা।

আলিবাবার মতো বাংলাদেশে কার্যক্রম থাকা কোনো কোম্পানি কিনে বা কোনো অংশীদারিত্বে নয়, অ্যামাজন এফডিআই করে বোর্ড অব ইনভেস্টমেন্টের অনুমোদনে ‘অ্যামাজন বাংলাদেশ’ হিসেবে কার্যক্রম শুরু করবে।তবে শুরুতে এই বিনিয়োগের পরিমাণ কত হবে তা জানা যায়নি।

বাংলাদেশ সফরকালে অ্যামাজন কর্তৃপক্ষ অ্যাকসেস টু ইনফরমেশন (এটুআই), ব্যাংকিং খাত, বিনিয়োগ সংশ্লিষ্ট সরকারের নীতি-নির্ধারণী পর্যায়ে বৈঠক-আলোচনা করে গেছেন।সম্প্রতি দেশিয় ই-কমার্স খাতের ভবিষ্যত রোডম্যাপ নিয়ে এক গোলটেবিল বৈঠকে আলোচকের বক্তব্যে অ্যামাজনের বাংলাদেশে কার্যক্রম শুরুর বিষয়টি তুলে ধরেন এটুআইয়ের ইএম সলিউশনস আর্কিটেক্ট অ্যান্ড ই-কমার্স টিম লিড রেজওয়ানুল হক জামি।

জানা গেছে, এটুআইয়ের সঙ্গে বৈঠকে সরকারের একশপ ই-কমার্স মার্কেটপ্লেসের অবকাঠামোগত সুবিধা চেয়েছে অ্যামাজন। যদিও এখন পর্যন্ত একশপ অ্যামাজনের সঙ্গে যুক্ত নয়।বর্তমান বিদেশি বিনিয়োগ নীতি অনুয়ায়ী, এই সুবিধা পেতে অ্যামাজনের কোনো বাধা নেই বলে নিশ্চিত করেছেন অ্যামজনের সঙ্গে বৈঠক করা দেশিয় একটি দপ্তরের ই-কমার্স খাত বিশেষজ্ঞ।

১৯৯৪ সালে জেফ বেজোসের হাত ধরে প্রতিষ্ঠিত হওয়া কোম্পানিটির বর্তমানে মার্কেট ভ্যালু ট্রিলিয়ন মার্কিন ডলার।